+1 vote
23 views
in পরিবার,বিবাহ,তালাক (Family Life,Marriage & Divorce) by (31 points)
আসসালামু আলাইকুম শায়েখ।
বর্তমানে একটা প্রথা দেখা যায় যে, কনের বিয়ের জন্য পোশাক, জুতা, গয়না, ব্যাগ ইত্যাদি কেনাকাটা করার খরচ বরপক্ষ দিয়ে থাকে। আর বরের পোশাক, জুতা ইত্যাদির খরচ কনেপক্ষ দিয়ে থাকে। ইসলামের দৃষ্টিতে এই প্রথাকে কিভাবে দেখা হয়। আর বিয়ে যদি সুন্নতি পদ্ধতিতেও হয়, তবু কি এই কেনাকাটার বিষয়টা এড়িয়ে যাওয়া উচিত নয়??

1 Answer

+1 vote
by (60,680 points)
edited by
ওয়া আলাইকুম আসসালাম।
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।

জবাবঃ-
বিয়ে-শাদীতে বর্তমানে প্রচলিত যে প্রথা রয়েছে,তথা কনের জন্য পোশাক, জুতা, গয়নাগাটি, ব্যাগ ইত্যাদি কেনাকাটা করা বা তার খরচ বরপক্ষ কর্তৃক দেয়া।ঠিকতেমনি বরের জন্য পোশাক, জুতা ইত্যাদির কেনাকাটা করা বা তার খরচ কনেপক্ষ কর্তৃক দেয়া।

প্রশ্ন জাগে এমন কোনো পদ্ধতি কি ইসলামে রয়েছে,
বর-কনে তাদের মধ্যকার যে কেউ কোনো প্রকার চাওযা বা আবদার ব্যতীত যদি অন্যজন কে কিছু দেয়,বা ক্রয় করার জন্য টাকা দেয়,তাহলে সেটা হাদিয়্যার পর্যায়ে গিয়ে বৈধ হবে। কিন্তু যদি কেউ এটাকে নিচক প্রথা পালন বা জরুরী মনে করে, তাহলে অবশ্যই সেটা বেদআত হবে নাজায়েয হবে।এগুলো বর-কনে কারো জন্যই জায়েয হবে না।কেননা অন্যর মাল তার অন্তরের সন্তুষ্টি ব্যতীত কারো জন্য হালাল হয় না।বিদায় এসব পরিত্যাজ্য।
কেননা আল্লাহ তা'আলা বলেনঃ
ﻳَﺎ ﺃَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﺁﻣَﻨُﻮﺍْ ﻻَ ﺗَﺄْﻛُﻠُﻮﺍْ ﺃَﻣْﻮَﺍﻟَﻜُﻢْ ﺑَﻴْﻨَﻜُﻢْ ﺑِﺎﻟْﺒَﺎﻃِﻞِ ﺇِﻻَّ ﺃَﻥ ﺗَﻜُﻮﻥَ ﺗِﺠَﺎﺭَﺓً ﻋَﻦ ﺗَﺮَﺍﺽٍ ﻣِّﻨﻜُﻢْ ﻭَﻻَ ﺗَﻘْﺘُﻠُﻮﺍْ ﺃَﻧﻔُﺴَﻜُﻢْ ﺇِﻥَّ ﺍﻟﻠّﻪَ ﻛَﺎﻥَ ﺑِﻜُﻢْ ﺭَﺣِﻴﻤًﺎ
তরজমাঃ-হে ঈমানদারগণ! তোমরা একে অপরের সম্পদ অন্যায়ভাবে গ্রাস করো না। কেবলমাত্র তোমাদের পরস্পরের সম্মতিক্রমে যে ব্যবসা করা হয় তা বৈধ। আর তোমরা নিজেদের কাউকে হত্যা করো না। নিঃসন্দেহে আল্লাহ তা’আলা তোমাদের প্রতি দয়ালু।(সূরা নিসা(২৯)

এবং হযরত ইবনে আব্বাস রাঃ থেকে বর্ণিত,
عن ابن عباس قال;قال رسول اللّٰه صلى اللّٰه عليه و سلم 
  " ﻻ ﻳﺤﻞ ﻣﺎﻝ ﺍﻣﺮﺉ ﻣﺴﻠﻢ ﺇﻻ ﺑﻄﻴﺐ ﻧﻔﺲ ﻣﻨﻪ "
নবী কারীম সাঃ বলেনঃ"কোন মুসলমানের জন্য  অন্য কোনো মুসলমানের মাল তার অন্তরের সন্তুষ্টি ব্যতীত হালাল হবে না।(তালখিসুল হাবীর-১২৪৯)
আরো জানুন- 3747

হ্যা শুধুমাত্র মহরকে কনে নির্দিষ্ট সংখ্যায় দাবী করে বরের কাছ থেকে আদায় করতে পারবে।যত ইচ্ছা তত টাকাই কনে দাবী করতে পারবে।কেননা মহর স্ত্রীর হক।তাই সে নিজের হককে উসূল করতে পারবে।এ অধিকার কনের রয়েছে।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...