0 votes
8 views
in Halal & Haram by
closed by
পশু জবাই করার সময় যদি তার মাথা পরে যায়,তাহলে উক্ত পশুকে কি খাওয়া জায়েয হবে?
closed

1 Answer

0 votes
by (7k points)
selected by
 
Best answer
বিসমিহি তা'আলা

উত্তরঃ-

যে সমস্ত প্রাণী জবেহ করার মাধমে খাওয়া হালাল হয় ঐ সমস্ত প্রাণীকে জবেহ করার শরয়ী পদ্ধতি নিম্নরূপ।

জবেহের মাধ্যমে প্রাণী হালাল হতে হলে শর্ত হচ্ছে

(১)যবেহকারী এতটুকু জ্ঞানসম্পন্ন হওয়া যে যবেহের মাধমে যে প্রাণী হালাল হয় তা বুঝতে পারা।

(২)যবেহকারী  মুসলমান বা আহলে কিতাব হওয়া।

(৩)যবেহের সময় আল্লাহর নাম উচ্ছারণ করা(চায় সরাসরি লফজে আল্লাহ হোক বা সিফতি কোনো নাম হোক)

(৪)এবং উক্ত বিসমিল্লাহ বলার দ্বারা জবেহ উদ্দেশ্য হওয়া।সুতরাং অন্য কোন উদ্দেশ্যে বিসমিল্লাহ বলার পর জবেহ করলে উক্ত প্রাণী হালাল হবে না।

(৫)শুধুমাত্র আল্লাহর নাম উচ্ছারণ করা, এর সাথে অন্য কারো নাম উচ্ছারণ না করা, চায় নবীর নামই হোকনা কেন।

(৬)আল্লাহর নামকে সম্মান ও বড়ত্বর দৃষ্টিকোণে উচ্ছারণ করা, দু'আর উদ্দেশ্যে উচ্ছারণ না করা।

(৭)বিসমিল্লাহ এবং জবেহের মধ্যে কালক্ষেপণ না করা।(ফাতওয়ায়ে হিন্দিয়া ৫/২৮৫-২৮৬)

এ প্রসঙ্গে কুরআনের কারীমের ঘোষনা হলঃ

ولا تأكلوا مما لم يذكر اسم اللّٰه عليه ،

তোমরা খওনা (ওইসব পশু)যাতে (জবাইকালে)আল্লাহর নাম নেয়া হয় নাই।

এবং জবেহের রুকুন বা ফরযতুল্য বিষয় হচ্ছে,শরয়ী জবেহ হওয়া। শরয়ী জবেহের পদ্ধতি হল

 فَرُكْنُهَا الذبح........إلي ان قال .......

، وَالذَّبْحِ هُوَ فَرْيُ الْأَوْدَاجِ وَمَحَلُّهُ مَا بَيْنَ اللَّبَّةِ وَاللَّحْيَيْنِ، َ

তরজমাঃ-জবেহের মাধমে প্রাণী হালাল হওয়ার রুকুন বা ফরযতুল্য বিষয় হচ্ছে জবেহ করা। এবং জবেহ বলা হয় শাহরগকে কর্তন করা,এবং তার স্থান হচ্ছে, বক্ষের উপরিভাগ থেকে চোয়ালের হাড় পর্যন্ত। (ফাতওয়ায়ে হিন্দিয়া ৫/২৮৫)

ফুকাহায়ে কেরামদের উপরোক্ত আলোচনা থেকে বুঝা যায় যে,যবেহের মধ্যে উপরোক্ত শর্ত পাওয়া গেলে প্রাণী হালাল হবে, চায় গালা একবারে পৃথক হয়ে যাক বা না যাক।

সুতরাং অনিচ্ছাকৃত গলা পৃথক হয়ে গেলেও প্রাণী হালাল হবে যদি যবেহের মধ্যে উপরোক্ত শর্তসমুহ পাওয়া যায়।তবে যেহেতু গলাটা একবারে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া যবেহকারীর হিংস্র মনোভাবকে প্রদর্শন করে তাই কেউ ইচ্ছা করে এরকম যবেহ করলে  মাকরুহ হবে।তবে গোস্ত সর্বাবস্থায়ই হালাল হবে।

আহসানুল ফাতাওয়া ৫/৪০৭

আল্লাহ-ই ভাল জানেন।

উত্তর লিখনে

মুফতী ইমদাদুল হক

ইফতা বিভাগ, IOM.

পরিচালক

ইসলামিক রিচার্স কাউন্সিল বাংলাদেশ
ইসলামিক ফতোয়া ওয়েবসাইটটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত। যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।
...