+1 vote
135 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (54 points)
আসসালামু আলাইকুম।
১. আমরা জানি মেয়েদের মাথায় সবসময় কাপড় রাখা উচিত। কিন্তু গরমের কারণে ঘরে শুধু বাবার সামনে মাথায় কাপড় না দিলে কি গুনাহ হবে?
২. যদি কোনো মেয়ে নামাজ পড়ার সময় কোনো পরপুরুষ ঘরে ঢুকে যায় অথবা পরপুরুষ আসার কারণে কেউ দরজা খুলে দেয়, তাহলে নামাজরত মেয়েটির কি করা উচিত? সে কি নামাজ চালিয়ে যাবে?

৩. কোনো মেয়ে কি তার মোবাইলে কোনো কবির আবৃত্তি করা কবিতা ও ছবি রাখতে পারবে? যদি সে সেগুলো না শুনে ও না দেখে  তবে কি জায়েজ??

1 Answer

0 votes
by (82,360 points)
উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته
بسم الله الرحمن الرحيم

(০১) শরীয়তের বিধান অনুযায়ী  মহিলাদের জন্য মাহরামের সামনে সতর হল, সতর হল, মাথা, চুল, গর্দান, কান, হাত, পা, টাখনু, চেহারা, গর্দান সংশ্লিষ্ট সিনার উপরের অংশ ছাড়া বাকি পূর্ণ শরীর সতর।

ফাতাওয়ায়ে শামীতে আছে  
(وَمِنْ مَحْرَمِهِ) هِيَ مَنْ لَا يَحِلُّ لَهُ نِكَاحُهَا أَبَدًا بِنَسَبٍ أَوْ سَبَبٍ وَلَوْ بِزِنًا (إلَى الرَّأْسِ وَالْوَجْهِ وَالصَّدْرِ وَالسَّاقِ وَالْعَضُدِ إنْ أَمِنَ شَهْوَتَهُ) (رد المحتار، كتاب الحظر والاباحة، فصل فى النظر والمس-9/527-528)
যার সারমর্ম হলো যদি ফিতনার   আশংকা না থাকে,তাহলে  মাহরামদের সামনে উক্ত অঙ্গ গুলো খোলা রাখা জায়েজ আছে, কোনো সমস্যা নেই।      
,
সুতরাং কোনো মহিলা তার বাবার সামনে মাথা খোলা রাখতে পারবে,এতে কোনো গুনাহ নেই।   
,

(০২) মহিলাদের নামাজের ভিতর চেহারা,হাতের কব্জি,পা ব্যাতিত সবই ছতর।
সুতরাং পুরোপুরি ছতর ঢেকেই তাদের নামাজ আদায় করতে হয়।  
সুতরাং এহেন পরিস্থিতিতে কোনো গায়রে মাহরাম তার ঘরে প্রবেশ করলে নামাজের কোনো সমস্যা হবেনা। 
,
তবে যেহেতু এটা ফিতনার যুগ,তাই গায়রে মাহরামদের সামনে চেহারা খোলা রাখা জায়েজ নেই, সুতরাং   আগে থেকেই সতর্ক থেকে নামাজ আদায় করতে হবে।
এমন ঘরে আদায় করতে হবে,যেখানে এমন কেহ আসবেনা।
আসার সম্ভাবনা থাকলে নিষেধ করে দিতে হবে।     
,
(০৩) কবির আবৃত্তি করা কবিতা যদি সেখানে বাজনা না থাকে,এবং শরীয়ত বিরোধী কোনো কথা সেখানে না থাকে,ফেতনারও যদি আশংকা না থাকে, তাহলে এমন কবিতা মহিলা মোবাইল ফোনে রাখতে পারবে।
তবে কবির ছবি রাখা জায়েজ হবেনা। 


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

by (54 points)
জাযাকাল্লাহ খায়ের শায়েখ। 

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...