0 votes
11 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (12 points)
আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ।

আমি কোনো মাযহাব ই স্পষ্ট ভাবে ফলো করি না। কিন্তু হানাফী মাযহাবের প্রতি আগ্রহ বেশি। কিন্তু কিছু প্রশ্ন আছে-

১. হানাফী মাযহাব অনুযায়ী কি রফুল ইয়াদান করা যাবে না নামাযে?

২. দেখা যায় কিছু হানাফী অনুসারীরা রোযা ও ঈদ বিশ্বে প্রথম চাঁদ দেখা অনুযায়ী করে, যা বাংলাদেশ থেকে এক দিন আগে হয়। এখন হানাফী মানতে হলে কি এক দিন আগে রোযা ও ইদ করতে হবে?

৩. হানাফী অনুযায়ী  তারাবী নামায কয় রাকাত? আর নিয়ম কেমন?

1 Answer

0 votes
by (145,240 points)
ওয়া আলাইকুমুস-সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। 
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ-
(১)
রা'ফে ইয়াদাইন মুস্তাহাব কি না?
এ সম্পর্কে উলামাদের মতপার্থক্য বর্ণিত রয়েছে।হানাফি ফিকহ মতে রু'কু সিজদাতে যাওয়ার প্রক্ষালে রা'ফে ইয়াদাইন মুস্তাহাব নয়। সুতরাং হানাফি ফিকহ মতে রু'কু সিজদাতে যাওয়ার প্রক্ষালে রা'ফে ইয়াদাইন অতিরিক্ত সওয়াবকে বয়ে নিয়ে আসবে না।

وَلَنَا أَنَّ الْآثَارَ لَمَّا اخْتَلَفَتْ فِي فِعْلِ رَسُولِ اللَّهِ - صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ - يُتَحَاكَمُ إلَى قَوْلِهِ وَهُوَ الْحَدِيثُ الْمَشْهُورُ: «أَنَّ النَّبِيَّ - صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ - قَالَ لَا تُرْفَعُ الْأَيْدِي إلَّا فِي سَبْعِ مَوَاطِنَ عِنْدَ افْتِتَاحِ الصَّلَاةِ، وَفِي الْعِيدَيْنِ وَالْقُنُوتِ فِي الْوِتْرِ»، وَذَكَرَ أَرْبَعَةً فِي كِتَابِ الْمَنَاسِكِ 
হানাফিদের দালিলঃ
যখন রাসূলুল্লাহ সাঃ এর নামায পড়ার পদ্ধতি-যা আমাদের পর্যন্ত পরস্পরা বর্ণিত হয়েছে, তাতে যখন আমরা বিরোধপূর্ণ দেখতে পাই।তখন আমরা রাসূলুল্লাহ সাঃ এর ঐ মশহুর হাদিস-যাতে রাসূলুল্লাহ সাঃ নিজে নামায পড়ার পদ্ধতি শিখিয়ে ঘোষনা দিয়েছেন-এর দিকে আলোকপাত করব।
তাতে বর্ণিত রয়েছে যে,
রাসূলুল্লাহ সাঃ বলেছেন,সাতস্থান ব্যতীত হাতদ্বয় উত্তোলন করা যাবে না।যথাক্রমে-
(১)তাকবীরে তাহরিমা(২)দুই ঈদের তাকবীরে যাওয়ায়িদ(৩)বিতিরের নামাযে দু'অায়ে কুনুতের পূর্বে ইত্যাদি।বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন-২৫৩

তবে অন্যান্য মাযহাবমতে রা'ফে ইয়াদাইন যেহেতু মুস্তাহাব,তাই রা'ফে ইয়াদাইন করলে অবশ্যই অতিরিক্ত সওয়াব পাওয়া যাবে।

সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
সুতরাং হানাফি ফিকহ অনুযায়ী রাফে ইয়াদাইন করা যাবে না। 

( ২)
হানাফি মাযহাব মানলে নিজ এলাকায় বা দেশে চাদ দেখে রোযা বা ইফতার করতে হবে। সৌদির চাদ দেখার সাথে রোযা ঈদ করা যাবে না। 

(৩)
হানাফি ফিকহ অনুযায়ী তারাবিহ বিশ রা’কাত। 


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...