0 votes
93 views
in খাদ্য ও পানীয় (Food & Drink) by (2 points)
আমরা একটি বাসায় মেস করে থাকি,বাসায় যে বুয়া রাখা হয়েছে তিনি হিন্দু।বাজার আমরা করে দেই,উনি রান্না করেন।আমার প্রশ্ন হচ্ছে,উনার হাতের রান্না খাওয়া জায়েয হবে কিনা?উনি প্রায় একবছর যাবত আমাদের রান্না করছেন।যদি হারাম হয়ে থাকে,তবে এ ব্যাপারে এখন কি করণীয় আছে?

1 Answer

0 votes
by (255,440 points)
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম।
জবাবঃ
আল্লাহ তা'আলা বলেন,
الْيَوْمَ أُحِلَّ لَكُمُ الطَّيِّبَاتُ وَطَعَامُ الَّذِينَ أُوتُواْ الْكِتَابَ حِلٌّ لَّكُمْ وَطَعَامُكُمْ حِلُّ لَّهُمْ وَالْمُحْصَنَاتُ مِنَ الْمُؤْمِنَاتِ وَالْمُحْصَنَاتُ مِنَ الَّذِينَ أُوتُواْ الْكِتَابَ مِن قَبْلِكُمْ إِذَا آتَيْتُمُوهُنَّ أُجُورَهُنَّ مُحْصِنِينَ غَيْرَ مُسَافِحِينَ وَلاَ مُتَّخِذِي أَخْدَانٍ وَمَن يَكْفُرْ بِالإِيمَانِ فَقَدْ حَبِطَ عَمَلُهُ وَهُوَ فِي الآخِرَةِ مِنَ الْخَاسِرِينَ
আজ তোমাদের জন্য পবিত্র বস্তুসমূহ হালাল করা হল। আহলে কিতাবদের খাদ্য তোমাদের জন্যে হালাল এবং তোমাদের খাদ্য তাদের জন্য হালাল। তোমাদের জন্যে হালাল সতী-সাধ্বী মুসলমান নারী এবং তাদের সতী-সাধ্বী নারী, যাদেরকে কিতাব দেয়া হয়েছে তোমাদের পূর্বে, যখন তোমরা তাদেরকে মোহরানা প্রদান কর তাদেরকে স্ত্রী করার জন্যে, কামবাসনা চরিতার্থ করার জন্যে কিংবা গুপ্ত প্রেমে লিপ্ত হওয়ার জন্যে নয়। যে ব্যক্তি বিশ্বাসের বিষয় অবিশ্বাস করে, তার শ্রম বিফলে যাবে এবং পরকালে সে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।(সূরা মায়েদা-৫)


তাছাড়া অন্যান্য অমুসলিম যদি কোনো প্রাণী জবাই করে তবে সেই প্রাণী ভক্ষণ করা কখনো জায়েয হবে না।সে হিসেবে হিন্দুদের জবাইকৃত প্রাণী খাওয়া কখনো জায়েয হবে না।

হিন্দুদের জবাইকৃত প্রাণী ব্যতীত তাদের তৈরীকৃত অন্যান্য খাবার ততক্ষণ হারাম হবে না, যতক্ষণ না প্রমাণিত হচ্ছে তারা এতে হারাম কিছুর সংমিশ্রণ ঘটিয়েছে।তবে যেহেতু কাফিরের উপর বিশ্বাস স্থাপন করা যায় না,তাই সতর্কতামূলক তাদের তৈরীকৃত খাবার না খাওয়াই উত্তম।জানুন-২৩০৭


سنُّوا بهم سنَّةَ أهلِ الكتابِ غيرَ ناكحي نسائِهم ولا آكِلي ذبائحِهم الراوي : - | المحدث : الزيلعي | المصدر : نصب الراية-الصفحة أو الرقم: 4/181 | خلاصة حكم المحدث : غريب بهذا اللفظ
তোমরা মুশরিকদের সাথে আহলে কিতাবদের মত ব্যবহার করো।তবে তাদের মহিলাদেরকে বিবাহ করতে পারবে না।এবং তাদের জবাইকৃক পশু ভক্ষণ করতে পারবে না।(নসবুর রায়া-৪৩৭২)


সু-প্রিয় প্রশ্নকারী দ্বীনী ভাই/বোন!
উত্তম হচ্ছে কোনো মুসলমান বুয়ার মাধ্যমে রান্না করিয়ে নেয়া।কেননা কাফির কখনো বিশ্বাসযোগ্য হতে পারে না।


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

--------------------------------
মুফতী ইমদাদুল হক
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...