+1 vote
76 views
in miscellaneous Fiqh by
বয়স্ক/ বৃদ্ধ মহিলাদের পর্দা কেমন হবে?

1 Answer

0 votes
by (3.3k points)
বিসমিহি তা'আলা

জবাবঃ-

দুর্রুল মুখতার গ্রন্থে বর্ণিত রয়েছে,

ﺃﻣﺎ اﻟﻌﺠﻮﺯ اﻟﺘﻲ ﻻ ﺗﺸﺘﻬﻰ ﻓﻼ ﺑﺄﺱ ﺑﻤﺼﺎﻓﺤﺘﻬﺎ ﻭﻣﺲ ﻳﺪﻫﺎ ﺇﺫا ﺃﻣﻦ، ﻭﻣﺘﻰ ﺟﺎﺯ اﻟﻤﺲ ﺟﺎﺯ ﺳﻔﺮﻩ ﺑﻬﺎ ﻭﻳﺨﻠﻮ ﺇﺫا ﺃﻣﻦ ﻋﻠﻴﻪ ﻭﻋﻠﻴﻬﺎ ﻭﺇﻻ ﻻ

ভাবার্থঃ

এমন বৃদ্ধা মহিলা যাকে দেখলে যৌনচাহিদা জাগ্রত  হয় না,তার সাথে মুসাফাহা করতে কোনো সমস্যা নেই,যদি পুরুষ নিজের উপর নিয়ন্ত্রন রাখতে সক্ষম হন।

যখন স্পর্শ করা জায়েয তখন তাকে নিয়ে সফর করাও জায়েয হবে।এবং তার সাথে নির্জনে অবস্থান করাও জায়েয হবে।

এ বিধান তখনই যখন উক্ত বৃদ্ধা মহিলা ও স্পর্শকারী পুরুষ উভয় নিজের উপর নিয়ন্ত্রন রাখতে সক্ষম হবেন।

নতুবা কখনো জায়েয হবে না।

(৬/৩৬৮-শামেলা নুসখা)

দুর্রুল মুখতার গ্রন্থের উক্ত ইবারতের ব্যখ্যায় আল্লামা শামী রাহ, রদ্দুল মুহতার গ্রন্থে লিখেন,

(ﻗَﻮْﻟُﻪُ ﺃَﻣَّﺎ اﻟْﻌَﺠُﻮﺯُ ﺇﻟَﺦْ)
ﻭﻓﻲ ﺭﻭاﻳﺔ ﻳﺸﺘﺮﻁ ﺃﻥ ﻳﻜﻮﻥ اﻟﺮﺟﻞ ﺃﻳﻀﺎ ﻏﻴﺮ ﻣﺸﺘﻬﻰ اﻩـ ﻗﻬﺴﺘﺎﻧﻲ ﻋﻦ اﻟﻜﺮﻣﺎﻧﻲ،ﻗﺎﻝ ﻓﻲ اﻟﺬﺧﻴﺮﺓ: ﻭﺇﻥ ﻛﺎﻧﺖ ﻋﺠﻮﺯا ﻻ ﺗﺸﺘﻬﻲ، ﻓﻼ ﺑﺄﺱ ﺑﻤﺼﺎﻓﺤﺘﻬﺎ ﺃﻭ ﻣﺲ ﻳﺪﻫﺎ، ﻭﻛﺬﻟﻚ ﺇﺫا ﻛﺎﻥ ﺷﻴﺨﺎ ﻳﺄﻣﻦ ﻋﻠﻰ ﻧﻔﺴﻪ ﻭﻋﻠﻴﻬﺎ ﻓﻼ ﺑﺄﺱ ﺃﻥ ﻳﺼﺎﻓﺤﻬﺎ ﻭﺇﻥ ﻛﺎﻥ ﻻ ﻳﺄﻣﻦ ﻋﻠﻰ ﻧﻔﺴﻪ ﺃﻭ ﻋﻠﻴﻬﺎ ﻓﻠﻴﺠﺘﻨﺐ،

ভাবার্থঃ

মহিলা-ই শুধু এমন হলে চলবে না যে,যাকে দেখলে যৌনচাহিদা জাগ্রত হয় না।বরং স্পর্শকারী পুরুষকেও এমন হতে হবে যে, যাকে দেখে কোনো মহিলার যৌনচাহিদা জাগ্রত হয় না।(কুহুসতানী)

'যাখিরাহ' নামক কিতাবে বর্ণিত রয়েছে,

যদি বৃদ্ধা মহিলা এমন পর্যায়ের হন,যার যৌনচাহিদা আপাতত জাগ্রত হবে না,তাহলে তার সাথে মুসাফাহা করা বা তার হাত স্পর্শ করা যাবে,এতে কোনো সমস্যা নাই।

তদ্রূপ বৃদ্ধ পুরুষও যদি এমন পর্যায়ের হন,যে তার নিজের উপর নিয়ন্ত্রন রয়েছে, এবং উক্ত মহিলার ও নিজের উপর নিয়ন্ত্রন রয়েছে বলে ধারণা করা যায় তাহলে তারা পরস্পর মুসাফাহা করতে পারবেন।এতে কোনো সমস্যা নাই।

হ্যা যদি বৃদ্ধ বা বৃদ্ধা কেউ ই নিজের উপর নিয়ন্ত্রন রাখতে অক্ষম হন,তাহলে তারা যেন পরস্পর দূরে থাকেন।

ﺛﻢ ﺇﻥ ﻣﺤﻤﺪا ﺃﺑﺎﺡ اﻟﻤﺲ ﻟﻠﺮﺟﻞ ﺇﺫا ﻛﺎﻧﺖ اﻟﻤﺮﺃﺓ ﻋﺠﻮﺯا ﻭﻟﻢ ﻳﺸﺘﺮﻁ ﻛﻮﻥ اﻟﺮﺟﻞ ﺑﺤﺎﻝ ﻻ ﻳﺠﺎﻣﻊ ﻣﺜﻠﻪ، ﻭﻓﻴﻤﺎ ﺇﺫا ﻛﺎﻥ اﻟﻤﺎﺱ ﻫﻲ اﻟﻤﺮﺃﺓ ﻓﺈﻥ ﻛﺎﻧﺎ ﻛﺒﻴﺮﻳﻦ ﻻ ﻳﺠﺎﻣﻊ ﻣﺜﻠﻪ، ﻭﻻ ﻳﺠﺎﻣﻊ ﻣﺜﻠﻬﺎ ﻓﻼ ﺑﺄﺱ ﺑﺎﻟﻤﺼﺎﻓﺤﺔ ﻓﻠﻴﺘﺄﻣﻞ ﻋﻨﺪ اﻟﻔﺘﻮﻯ اﻩـ

অতঃপর ইমাম মুহাম্মদ রাহ মনে করেন যে,

পুরুষের জন্য (উপরোক্ত)বৃদ্ধা মহিলাকে স্পর্শ করা বৈধ, এ ব্যাপারে তিনি পুরুষের জন্য (বার্ধক্যর ধরুন)সহবাসে অক্ষম হওয়ার শর্তারোপ করেননি।

তদ্রূপ যদি স্পর্শকারী নারী হয়,এবং উভয়ই এমন পর্যায়ের বৃদ্ধ হন,যে কেউ সহবাসে উপযোগী বা সক্ষম নন, তাহলে তাদের জন্য পরস্পর মুসাফাহা করা বৈধ রয়েছে।এতে কোনো সমস্যা নাই।

(৬/৩৬৮-শামেলা নুসখা)

বৃদ্ধ মহিলার সাথে বৃদ্ধ পুরুষের দেখা সাক্ষাত শীতিলযোগ্য বিধান।

ইমদাদুল ফাতাওয়া-৪/২০১

সু-প্রিয় পাঠকবর্গ!
বৃদ্ধা মহিলাগণ যদি এমন হন যে, যাদেরকে দেখলে যৌনচাহিদা জাগ্রত হয় তাহলে তাদেরকে অবশ্যই যুবতী মহিলাদের মত পর্দা করে চলতে হবে।

আর যদি এমন হন যে, যাদের নিজেদেরও যৌনচাহিদা নেই এবং অন্য পুরুষদের যৌনচাহিদা জাগ্রতকারী ও নয় (তথা কেউ দেখলেও তার যৌনচাহিদা জাগ্রত হয় না) তাহলে সেই সমস্ত বৃদ্ধা মহিলাদের জন্য যদিও যুবতীদের মত পর্দা ফরয নয় তবে অবশ্যই তাদের কে শালিন পোষাক পড়তে হবে।

আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

উত্তর লিখনে

মুফতী ইমদাদুল হক

ইফতা বিভাগ, iom



পরিচালক

ইসলামিক রিচার্স কাউন্সিল বাংলাদেশ।
ইসলামিক ফতোয়া ওয়েবসাইটটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত। যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।
...