0 votes
21 views
in Hajj & Umrah by
আসসালামু আলাইকু। এক ব্যক্তির হজ করার প্রবল ইচ্ছা ছিল এবং ফরজ ও ছিল। কিন্তু উনি অসুস্থ থাকায় ( উল্লেখ্য উনি জীবনের শেষ ৩ বছর কাউকে চিনতেন না,নিজের স্ত্রী সন্তান দের ও না এবং সসম্পূর্ণ বিছানায় পড়া ছিলেন এবং কথা বলতেও পারতেন না। একদম অনুভূতি হীন ছিলেন) হজ আদায় করতে পারেন নি। আর এমন না যে উনি ইচ্ছে করে আদায় করেন নি। সরকারি চাকুরী করতেন। রিটায়ার এর ১ বছর আগে থেকেই মাথার গোলমাল শুরু হয় উনার । হজ মূলত ফরজ হয় পেনশন এর টাকা পাবার পর।
এখন প্রশ্ন হল উনার ছেলেরা কি উনার হজ আদায় করতে পারবেন? ছেলেরা নিজেদের হজ পালন করেছেন।

1 Answer

0 votes
by (1.3k points)

ওয়াআলইকুম ওয়াস্সালাম

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম 
যার উপর হজ্ব ফরয হয়েছে এবং হজ্ব আদায়ের সক্ষমতাও ছিল, কিন্তু শক্তি-সামর্থ্য থাকা সত্ত্বেও হজ্ব করেনি। অতপর হজ্ব আদায়ের সক্ষমতা হারিয়ে মাজুর হয়ে পড়েছে এমন ব্যক্তির উপর ফরয নিজের পক্ষ থেকে বদলী হজ্ব করানো অথবা মৃত্যুর সময় তার পক্ষ থেকে বদলী হজ্ব করানোর অসিয়ত করে যাওয়া।পক্ষান্তরে কোন ব্যক্তির উপর হজ ফরয হওয়ার পর আদায়ের সুযোগ পাওয়ার আগেই মৃত্যু এসে গেলে। এ ক্ষেত্রে ঐ ব্যক্তি থেকে হজ্ব রহিত হয়ে যায়। সুতরাং তার জন্য মৃত্যুর সময় হজ্বের অসিয়ত করে যাওয়ার প্রয়োজন নেই।

কোনো ব্যক্তির উপর হজ্ব ফরয ছিল, কিন্তু সে তা আদায় করেনি এবং তার পক্ষ থেকে আদায়ের অসিয়তও করেনি। এ অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। তার পক্ষ থেকে ওয়ারিশদের বদলী হজ্ব করা বা করানো জরুরি নয়। তবে কোনো ওয়ারিশ বা অন্য কেউ স্বেচ্ছায় তার পক্ষ থেকে বদলী হজ্ব করলে এর দ্বারা ঐ মৃত ব্যক্তির ফরয হজ্ব আদায় হয়ে যাওয়ার আশা করা যায়।

হযরত বুরাইদাহ রা. বলেন, জনৈক মহিলা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে জিজ্ঞাসা করলেনইয়া রাসূলাল্লাহ! আমার মা ইন্তিকাল করেছেন। তিনি হজ্ব করেননি। আমি কি তার পক্ষ থেকে হজ্ব করতে পারি? রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেনহ্যাঁ, তুমি তার পক্ষ থেকে হজ্ব করো। (সহীহ মুসলিম ১/৩৬২)

হযরত আতা রাহ. বলেছেনঅসিয়ত না করলেও মৃতের পক্ষ থেকে হজ্ব করানো যাবে।

উল্লেখ্য, উপরোক্ত ক্ষেত্রে ওয়ারিশগণ যদি মাইয়্যেতের অবণ্টিত পরিত্যক্ত সম্পদ দ্বারা বদলী হজ্ব করাতে চান তাহলে দুটি শর্ত অবশ্যপালনীয় : ক) বদলী হজ্বের অসিয়ত না করার কারণে মৃতের সকল সম্পদের বর্তমান মালিক যেহেতু ওয়ারিশগণ তাই উক্ত সম্পদ দ্বারা বদলী হজ্ব করাতে হলে সকল ওয়ারিশের স্বতঃস্ফূর্ত সম্মতি থাকতে হবে। খ) ওয়ারিশদের কেউ যদি নাবালেগ হয় কিংবা কোনো ওয়ারিশের যদি সম্মতি না থাকে তাহলে তার অংশ থেকে বদলী হজ্বের জন্য কিছুই নেওয়া যাবে না।

 

ইসলামিক ফতোয়া ওয়েবসাইটটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত। যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।

Related questions

0 votes
1 answer 7 views
0 votes
1 answer 16 views
0 votes
1 answer 10 views
...