0 votes
9 views
in Family Life,Marriage & Divorce by (4 points)
আসসালামুআলাইকুম,

আমার ফুফু একজন। চাচা ৩ জন. অর্থাৎ আমার আব্বা সহ উনারা ৪ ভাই এবং ১ বোন। সবাই জীবিত। আমার দাদা দাদি দুজন ই মৃত। আমাদের শোয়া ৩ কাঠার মতো জায়গা আছে. আমার দাদা জমিটি কিনেছিলেন। সবার সম্মতিক্রমে জমিটি এখন ভাগাভাগি অথবা বিক্রয়ের জন্য কথা চলছে। কিন্তু আমার চাচা আমার ফুফুকে বলেছিলেন যে, ইসলামিক নিয়ম অনুযায়ী ভাইয়েরা যতটুকু পাবেন তার অর্ধেক পাবেন উনি (ফুফু)। কিন্তু আমার ফুফুর পরিবার মানতে নারাজ. ফুফু আর ফুপি বলেন, না। সব সমান ভাগ হবে। এখন  আমার প্রশ্ন হলো, আসলে আমার ফুফু কতটুকু ভাগ পাবেন ওই জমির? অর্থাৎ ৪ ভাই ১ বোনের মধ্যে জমি বন্টন বা জমি বিক্রির টাকা কিভাবে বন্টন হবে? ইসলামিক নিয়ম অনুযায়ী যদি উনি ভাইদের অর্ধেক প্রাপ্য হন, উনাদের বুঝাবো কিভাবে? উনারা মানতে চান না।
জাজাকাল্লাহ

1 Answer

0 votes
by (16.9k points)
edited by

বিসমিহি তা’আলা 

আপনার ফুফূ আপনার পিতা তথা তার ভাইয়ের অর্ধেক পাবেন। কেননা শরীয়তে ইসলামীতে নিয়ম রয়েছে যে বোন তার ভাইয়ের অর্ধেক সম্পত্তি পাবে। যেমন আল্লাহ তা’আলা বলেন,


 يُوصِيكُمُ اللّهُ فِي أَوْلاَدِكُمْ لِلذَّكَرِ مِثْلُ حَظِّ الأُنثَيَيْنِ فَإِن كُنَّ نِسَاء فَوْقَ اثْنَتَيْنِ فَلَهُنَّ ثُلُثَا مَا تَرَكَ وَإِن كَانَتْ وَاحِدَةً فَلَهَا النِّصْفُ وَلأَبَوَيْهِ لِكُلِّ وَاحِدٍ مِّنْهُمَا السُّدُسُ مِمَّا تَرَكَ إِن كَانَ لَهُ وَلَدٌ فَإِن لَّمْ يَكُن لَّهُ وَلَدٌ وَوَرِثَهُ أَبَوَاهُ فَلأُمِّهِ الثُّلُثُ فَإِن كَانَ لَهُ إِخْوَةٌ فَلأُمِّهِ السُّدُسُ مِن بَعْدِ وَصِيَّةٍ يُوصِي بِهَا أَوْ دَيْنٍ آبَآؤُكُمْ وَأَبناؤُكُمْ لاَ تَدْرُونَ أَيُّهُمْ أَقْرَبُ لَكُمْ نَفْعاً فَرِيضَةً مِّنَ اللّهِ إِنَّ اللّهَ كَانَ عَلِيما حَكِيمًا

আল্লাহ তোমাদেরকে তোমাদের সন্তানদের সম্পর্কে আদেশ করেনঃ একজন পুরুষের অংশ দু?জন নারীর অংশের সমান। অতঃপর যদি শুধু নারীই হয় দু' এর অধিক, তবে তাদের জন্যে ঐ মালের তিন ভাগের দুই ভাগ যা ত্যাগ করে মরে এবং যদি একজনই হয়, তবে তার জন্যে অর্ধেক। মৃতের পিতা-মাতার মধ্য থেকে প্রত্যেকের জন্যে ত্যাজ্য সম্পত্তির ছয় ভাগের এক ভাগ, যদি মৃতের পুত্র থাকে। যদি পুত্র না থাকে এবং পিতা-মাতাই ওয়ারিস হয়, তবে মাতা পাবে তিন ভাগের এক ভাগ। অতঃপর যদি মৃতের কয়েকজন ভাই থাকে, তবে তার মাতা পাবে ছয় ভাগের এক ভাগ ওছিয়্যতের পর, যা করে মরেছে কিংবা ঋণ পরিশোধের পর। তোমাদের পিতা ও পুত্রের মধ্যে কে তোমাদের জন্যে অধিক উপকারী তোমরা জান না। এটা আল্লাহ কতৃক নির্ধারিত অংশ নিশ্চয় আল্লাহ সর্বজ্ঞ, রহস্যবিদ।

সূরা নিসা-১১।                                                                                                                                                                                      

আল্লাহ তা’আলাই ভালো জানেন। 

উত্তর লিখনে

মুফতী ইমদাদুল হক

ইফতা বিভাগ, Iom.

পরিচালক

ইসলামিক রিচার্স কাউন্সিল বাংলাদেশ

ago by (4 points)
জাজাকআল্লাহ।উত্তর পেয়েছি মুহতারাম ।

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের  অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।

402 questions

383 answers

45 comments

258 users

13 Online Users
0 Member 13 Guest
Today Visits : 4901
Yesterday Visits : 4653
Total Visits : 502139
...