+1 vote
1.7k views
in Family Life,Marriage & Divorce by
আস সালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ

বিয়েতে ছেলে পক্ষকে ছবি দেয়া কি জায়েজ আছে শরিয়তে??
উল্লেখ্য যে আমার বাবা-মা আমার বিয়ের জন্য দ্বীনদার ছেলেই খুঁজে  থাকেন, কিন্তু দেখা যায় প্রায় সকল ছেলেরাই ছবি চেয়ে বসেন, যদিও বলা হয় বাস্তব আর ছবি এক হয় না সরাসরি এসে দেখে যান, কিন্তু তারা অনেকেই মানতে চায় না!! যা কারনে তারা(বাবা-মা) ধরেই নিয়েছেন ছবি দেখা  বা দেয়া ব্যাতিত কোন দ্বীনদার ছেলেই আর আসবেনা!!  এবং আমাকে বলে ছবি তুলে দিতে..!!
যদি ছবি দেয়া জায়েজ নাই হয় তবে অন্তত দ্বীনদার ভাইয়েরা কেন ছবি চেয়ে বেড়ান আমার বুঝে আসছে নাহ..!
এমতাবস্থায় কি করণীয় , মুহতারাম..?!

1 Answer

0 votes
by (1.3k points)
edited by
ওআলাইকুম ওয়াস্সালাম.

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম.

বিবাহের ক্ষেত্রে বর-কণের করণীয় সমূহের মধ্যে অন্যতম একটি হলো ‘‘পাত্র-পাত্রী’’ দেখা..  কিন্তু সে সম্পর্কেও সুনির্দিষ্ট দিক-নির্দেশনা ইসলামে রয়েছে। মুহাম্মাদ (সাঃ) এর নির্দেশনা থেকে এ বিষয়ে পরিষ্কার ধারণা পাওয়া যায়।  রাসূল সা. বলেন-
“তোমাদের কেউ যখন নারীকে বিবাহের প্রস্তাব দেয়, অতপর তার পক্ষে যদি ওই নারীর এতটুকু সৌন্দর্য দেখা সম্ভব হয়, যা তাকে মুগ্ধ করে এবং মেয়েটিকে (বিয়ে করতে) উদ্বুদ্ধ করে, সে যেন তা দেখে নেয়।” (বাইহাকী, সুনান কুবরা : ১৩৮৬৯)

অপর এক হাদীসে রয়েছে, আবূ হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন,“আমি মহানবী (সাঃ) এর কাছে ছিলাম। এমতাবস্থায় তাঁর কাছে এক ব্যক্তি এসে জানাল যে, সে একজন আনসারী মেয়েকে বিয়ে করেছে। তখন রাসূল (সাঃ) তাকে জিজ্ঞেস করলেন, ‘তুমি কি তাকে দেখেছো?’ সে বললো, না। তিনি বললেন, যাও, তুমি গিয়ে তাকে দেখে নাও। কারণ আনসারীদের চোখে (সমস্যা) কিছু একটা রয়েছে।” (মুসলিম : ৩৫৫০)

কিন্তু বর্তমানে প্রযুক্তির আশ্রয়েও পরস্পর পরস্পরকে দেখে নেয়া যায়.  এক্ষেত্রে এটি নাজায়েয হওয়ার কোন কারণ স্পষ্ট নয়। সরাসরি নাজায়েয না হলেও ; এতে সতর্কতা কাম্য। কারণ (আল্লাহ হেফাযত করুন) এখানে ছবিটি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে। তাই যথাসম্ভব তা এড়িয়ে যাওয়াই শ্রেয়। (আল্লাহু আলাম)

আরিফুল ইসলাম

ফিক্হ ডি. আই ও এম।
by
উস্তাদ,এই উত্তর টা দেখা যাচ্ছে না! অক্ষরগুলো কেমন যেন আসছে, সম্ভবত সবার কাছেই এমন টা এসেছে!!
by (1.3k points)
এবার আশা করি দেখতে পারছেন
ইসলামিক ফতোয়া ওয়েবসাইটটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত। যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।
...