0 votes
613 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (59 points)
edited by
একজন মেয়ে হিসেবে কি বাসায় ছেলে স্যার রাখা যাবে সম্পূর্ণ পর্দা করলে?

নন মাহরাম দের কি সালাম দেওয়া যাবে?
আমি সম্পুর্ণ পর্দা করি শুধুমাত্র চোখের আই ব্রু আর হাত দেখালে কি গুনাহ হবে?

কুরআন তিলাওয়াত এর জন্যে গলার আওয়াজ সুমধুর কেমনে করব? আর সঠিক স্থান থেকে মাখরাজ উচ্চারিত না হলে কি করা যেতে পারে?

তাড়াতাড়ি দীনদার ছেলের সাথে বিয়ের জন্যে কি আমল করা যেতে পারে?

গায়ের রঙ ফর্সাকারী ক্রিম ব্যবহার করা কি গুনাহ? তাহলে কিভাবে রং উজ্জল করতে পারি শরিয়ত মোতাবেক?

ছোটবেলার ছবি স্কুলের পাসপোর্ট সাইজের ছবি বাসায় রাখলে কি গুনাহ হবে?

1 Answer

0 votes
by (243,280 points)
জবাব
بسم الله الرحمن الرحيم 

★শরীয়তের বিধান হলো যদি ছাত্রী বালিগ হয়,এবং সে কোনে মহিলা শিক্ষক খুজে না পায়,তাহলে তখন ছাত্রীর জন্য পূর্ণ হিজাব পরিধান,এবং ঐ ছাত্রীর মাহরাম কোনো পুরুষ বা ঘরের কোনো বালিগ মহিলা, পাশে থাকার  শর্তে ছেলে স্যারের কাছে পড়া যাবে।
বিস্তারিত জানুনঃ 
,

★গায়রে মাহরাম যুবক পুরুষকে সালাম দেয়া যাবে না।সালাম দেয়া এবং জবাব দেয়া উভয়-ই মাকরুহ।

গায়রে মাহরাম কে সালাম দেওয়ার বিস্তারিত  বিধান জানুনঃ
,
★শরীয়তের বিধান অনুযায়ী হাত পর্দার অন্তর্ভুক্ত। 
তাই হাত দেখানো জায়েজ নেই।

বিস্তারিত জানুনঃ 

চোখের আই ব্রু প্রয়োজনের ভিত্তিতে  খোলা রাখা যাবে,তবে ফেতনার আশংকা থাকলে দ্রুত স্থান  ত্যাগ করা চাই।

★মহান আল্লাহ তাআলার কালাম তিলাওয়াতের বিশেষ নিয়ম ও আদব রয়েছে। আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেন-

وَرَتِّلِ الْقُرْآنَ تَرْتِيلًا

কুরআন তিলাওয়াত কর ধীরস্থির ভাবে, স্পষ্টরূপে। -সূরা মুযযাম্মিল (৭৩) : ৪

হাদীস শরীফে ইরশাদ হয়েছে-
زينوا القرآن بأصواتكم

সুন্দর সূরের মাধ্যমে কুরআনকে  (এর তিলাওয়াতকে) সৌন্দর্যমণ্ডিত কর। -সুনানে আবু দাউদ, হাদীস ১৪৬৮

সুন্দর তেলাওয়াতের জন্য আপনি ইউটিউব  থেকে কারী সাহবদের তেলাওয়াত শুনতে পারেন, কোনো মহিলার কাছে প্রাইভেট পড়তে পারেন,তাহলে মাখরাজ সহকারে পড়তে পারবেন,ইনশাআল্লাহ। 
চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে।
,
★কোনো সাজসজ্জা হারাম হওয়ার ব্যাপারে যতক্ষণ পর্যন্ত দলিল পাওয়া যাবে না, ততক্ষণ পর্যন্ত তা বৈধ। আর হারাম হওয়ার দলিল পাওয়া গেলে তা অবৈধ। কেননা, বস্তুর মূল হচ্ছে, বৈধতা। আল্লাহ তাআলা বলেন,

قُلْ مَنْ حَرَّمَ زِينَةَ اللّهِ الَّتِيَ أَخْرَجَ لِعِبَادِهِ وَالْطَّيِّبَاتِ مِنَ الرِّزْقِ

আপনি বলুন, আল্লাহর সাজসজ্জাকে, যা তিনি বান্দাদের জন্যে সৃষ্টি করেছেন এবং পবিত্র খাদ্রবস্তুসমূহকে কে হারাম করেছে? (সূরা আ’রাফ ৩২)

বর্তমানে স্নো, ক্রিম, পাউডারসহ বিভিন্ন ধরনের প্রসাধনী সামগ্রী পাওয়া যায়। এগুলোর ব্যবহার বৈধ। কেননা, ইসলাম নারীর জন্য মেহেদি, কলপ ইত্যাদির ব্যবহারের অনুমতি দিয়ে থাকে।  
বিন বায রহ. বলেন,

المكياج من باب الزينة، إذا كان لا يضر الوجه ولا يسبب ضرراً فلا حرج في ذلك، أما إذا كان يسبب ضرر فلا يُفعل
মেকআপ সাজসজ্জার অন্তর্ভুক্ত। যদি চেহারা বা ত্বকের ক্ষতি না করে তাহলে অসুবিধা নেই। কিন্তু যদি এর কারণে ক্ষতি হয় তাহলে করা যাবে না।
মেকআপে ক্ষতিকর বস্তু বা প্রসাধনী ব্যবহার করা যাবে না। কেননা, আমাদের দেহের মালিক আমরা নই।

সুতরাং প্রশ্নে উল্লেখিত ছুরতে গায়ের রঙ ফর্সাকারী ক্রিম ব্যবহার করা জায়েজ আছে।    
 তবে শর্ত হলোঃঃ

★অতিরিক্ত রূপচর্চা করা যাবে না। কেননা, অতিরিক্ত রূপচর্চা হয়ত ত্বকের ক্ষতি করে কিংবা অপচয়ের সীমায় পড়ে।

★ যে সমস্ত প্রসাধনী হালাল বস্তু দ্বারা তৈরি, সেগুলোর ব্যবহার জায়েয। যেমন- সাধারণ মেকআপ, লিপস্টিক ইত্যাদি। তবে এগুলোর উপাদানে যদি হারাম কিছু থাকে, এমনটি নিশ্চিতভাবে জানা থাকলে সেগুলো ব্যবহার করা জায়েয হবে না।

,
★ইসলামের মৌলিক বিধান হচ্ছে, জড়বস্তুর ছবি তোলা ও আঁকায় শরয়ী কোন বিধিনিষেধ নেই। আর প্রাণীর ছবি প্রয়োজন ছাড়া তোলা, সংরক্ষণ করা, প্রকাশ করা, ব্যবহার করা হারাম।  

অনেক বিশেষজ্ঞের মতে ডিজিটাল ক্যামেরায় ছবি তোলা, কম্পিউটার ও মোবাইলে সংরক্ষিত ছবিও ‘নিষিদ্ধ ছবি’র অন্তর্ভুক্ত বিধায় এটিও হারাম। 
বিস্তারিত জানুনঃ 

,
সুতরাং তাকওয়ার খাতিরে প্রশ্নে উল্লেখিত ছবি পুড়িয়ে ফেলা প্রয়োজন।    


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন। উত্তর না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনি প্রতিমাসে সর্বোচ্চ ৪ টি প্রশ্ন করতে পারবেন।

বি.দ্র: প্রশ্ন করা ও ইলম অর্জনের সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হলো সরাসরি মুফতি সাহেবের কাছে গিয়ে প্রশ্ন করা যেখানে প্রশ্নকারীর প্রশ্ন বিস্তারিত জানার ও বোঝার সুযোগ থাকে। যাদের এই ধরণের সুযোগ কম তাদের জন্য এই সাইট। প্রশ্নকারীর প্রশ্নের অস্পষ্টতার কারনে ও কিছু বিষয়ে কোরআন ও হাদীসের একাধিক বর্ণনার কারনে অনেক সময় কিছু উত্তরে ভিন্নতা আসতে পারে। তাই কোনো বড় সিদ্ধান্ত এই সাইটের উপর ভিত্তি করে না নিয়ে বরং সরাসরি মুফতি সাহেবদের সাথে যোগাযোগ করলে ভালো হয়। অন্যদিকে প্রতিমাসে একাধিকবার আমাদের মুফতি সাহেবগন জুমের মাধ্যমে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। সেই ক্লাসগুলোতেও জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা গেল। ক্লাসের সিডিউল: fb.com/iomedu.org

Related questions

...