0 votes
11 views
in পবিত্রতা (Purity) by (19 points)
আমি জানি যে মাথার যেখান থেকে চুল শুরু হয় তা থেকে কানের পাশ পর্যন্ত গোল হয়ে ঘুরে আসলে যতটুকু পরে ,এর মাঝের পুরোটুকু চেহারার অংশ।এবং এর মাঝে যদি চুল পড়ে তার নীচে পানি পৌছাইতে হবে ত্বক পর্যন্ত,তা যত বেশি চুল ই হোক না কেন।

আমি কি সঠিক টা জেনেছি?

1 Answer

0 votes
by (34,560 points)
জবাব
بسم الله الرحمن الرحيم 

অযুতে মুখমন্ডলের পরিসীমা হলো  কপালের চুলের গোড়া থেকে থুতনীর নিচ এবং উভয় কানের লতি পর্যন্ত পানি পৌঁছানো।
একবার ধোয়া ফরয, তিন বার ধোয়া সুন্নাত।
(ইমদাদুল আহকাম  ১/৩৬৬) 
۔
আল্লাহ তায়ালা বলেন
يا أيها الذين آمنوا إذا قمتم الي الصلوة فاغسلوا  وجوهكم 
হে ঈমানদার গন যখন তোমরা নামাজের জন্য দাড়াবে,তখন তোমাদের চেহারা ধৌত করবে,,,  
,
হাদীস শরীফে এসেছে  
حَدَّثَنَا عَبْدُ الْعَزِيزِ بْنُ عَبْدِ اللَّهِ الأُوَيْسِيُّ، قَالَ حَدَّثَنِي إِبْرَاهِيمُ بْنُ سَعْدٍ، عَنِ ابْنِ شِهَابٍ، أَنَّ عَطَاءَ بْنَ يَزِيدَ، أَخْبَرَهُ أَنَّ حُمْرَانَ مَوْلَى عُثْمَانَ أَخْبَرَهُ أَنَّهُ، رَأَى عُثْمَانَ بْنَ عَفَّانَ دَعَا بِإِنَاءٍ، فَأَفْرَغَ عَلَى كَفَّيْهِ ثَلاَثَ مِرَارٍ فَغَسَلَهُمَا، ثُمَّ أَدْخَلَ يَمِينَهُ فِي الإِنَاءِ فَمَضْمَضَ، وَاسْتَنْشَقَ، ثُمَّ غَسَلَ وَجْهَهُ ثَلاَثًا، وَيَدَيْهِ إِلَى الْمِرْفَقَيْنِ ثَلاَثَ مِرَارٍ، ثُمَّ مَسَحَ بِرَأْسِهِ، ثُمَّ غَسَلَ رِجْلَيْهِ ثَلاَثَ مِرَارٍ إِلَى الْكَعْبَيْنِ، ثُمَّ قَالَ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم " مَنْ تَوَضَّأَ نَحْوَ وُضُوئِي هَذَا، ثُمَّ صَلَّى رَكْعَتَيْنِ، لاَ يُحَدِّثُ فِيهِمَا نَفْسَهُ، غُفِرَ لَهُ مَا تَقَدَّمَ مِنْ ذَنْبِهِ ".
হুমরান (রহ.) হতে বর্ণিত। তিনি ‘উসমান ইবনু আফফান (রাযি.)-কে দেখেছেন যে, তিনি পানির পাত্র আনিয়ে উভয় হাতের তালুতে তিনবার ঢেলে তা ধুয়ে নিলেন। অতঃপর ডান হাত পাত্রের মধ্যে ঢুকালেন। তারপর কুলি করলেন ও নাকে পানি দিয়ে নাক পরিষ্কার করলেন। তারপর তাঁর মুখমন্ডল তিনবার ধুয়ে এবং দু’হাত কনুই পর্যন্ত তিনবার ধুলেন। অতঃপর মাথা মাসেহ করলেন। অতঃপর দুই পা টাখনু পর্যন্ত তিনবার ধুলেন। পরে বললেন, আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ ‘যে ব্যক্তি আমার মত এ রকম উযূ করবে, অতঃপর দু’রাক‘আত সালাত আদায় করবে, যাতে দুনিয়ার কোন খেয়াল করবে না, তার পূর্বের গুনাহ্ ক্ষমা করে দেয়া হবে। (বুখারী শরীফ ১৬০, ১৬৪, ১৯৩৪, ৬৪৩৩; মুসলিম ২/৩, হাঃ ২২৬, আহমাদ ৪৯৩, ৫১৩) (আধুনিক প্রকাশনীঃ ১৫৬, ইসলামিক ফাউন্ডেশনঃ ১৬১)
,

মারাকিল ফালাহ গ্রন্থে আছেঃ   
قال فی مراقی الفلاح وحدہ ای جملۃ الوجہ طولا من مبدأ سطح الجبھۃ سواء کان بہ شعرام لاواالجبھۃ مااکتنفہ جبینان الیٰ اسفل الذقن وھی مجموع لحیتہ واللحی منبت اللحیۃ فوق عظم الاسنان لمن لیست لہ لحیتہ کثیفہ وفی حقہ الی مالاقی البشرۃ من الوجہ وحدہ عرضامابین شحمتی الاذنین ویدخل فی الغایتین جزعًا منھما لاتصالہ بالفرض والبیاض الذی بین العذاروالاذن علی الصحیح اھ ملخصاً، ص ۳۴
যার সারমর্ম হলো চেহারার পরিসীমা হলো কপালের অগ্রভাগ,(শেষমাথা) , চাই সেখানে চুল থাকুক বা না থাকুক, থেকে নিয়ে থুতনীর নিচ পর্যন্ত। 
এবং এককানের লতি থেকে আরেক কানের লতি পর্যন্ত।
কানের লতি অবশ্যই ধুতে হবে,এটাও ফরজের মধ্যে শামিল। 
★সুতরাং প্রশ্নে উল্লেখিত পদ্ধতি ছহীহ। 
তবে ঘন দাড়ির ক্ষেত্রে শরীয়তের বিধান হলো খিলাল করা।
এক্ষেত্রে চামড়া পর্যন্ত পানি পৌছাতে হবেনা।

আরো জানুনঃ 


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...