0 votes
47 views
in পরিবার,বিবাহ,তালাক (Family Life,Marriage & Divorce) by
আসসালামুয়ালাইকুম ,একটা হাদিস দেখলাম fb তে ..সিলসিলাহ সাহিয়া এর হাদিস বলছে উনারা ..সেটা এমন যে
চারটি গুন্ বিশিষ্ট মহিলা জান্নাতি
1.স্বামীকে খুব বেশি ভালোবাসা
2.ঘন ঘন সন্তান প্রসব করা
3.স্বামীর সাথে বারংবার গভীর প্রেম বিনিময়ে অনুরাগী hoa
4.স্বামী কোনো karon বশত রাগান্নিত হলে স্বামীকে রাজি খুশি না করা পর্যন্ত খাদ্য না খাওয়ার দৃঢ় পরিকল্পনা করা
সিলসিলাহ  সহিয়া হাদিস  no 187

এই  হাদিস  সম্পর্কে ডিটেলস জানালে খুব উপকৃত হবো ..ওখানে অনেকে অনেক রকম কথা বলছে ..পড়ে কষ্ট লাগছে ..যদি আমাদের নবীজি বলে যান তো অবশ্যি মানতে হবে ..আর প্রত্যেকটা পয়েন্ট এর ডিটেলস টাও যদি বলে দেন উপকৃত হবো .শুকরিয়া .

1 Answer

0 votes
by (32.1k points)
বিসমিহি তা'আলা

জবাব:-

মুহতারাম আপনার প্রেরণকৃত তথ্যর ভিত্তিতে 'সালসিলায়ে আহাদিসে সহিহাহ' নামক কিতাবে উক্ত হাদিস খুঁজে পাইনি।

সঠিকভাবে তথ্য দিন।

উক্ত গুণ গুলো খুবই ভালো।এবং একজন মুসলিম মহিলার জন্য এটা অপরিহার্য।বিভিন্ন হাদীসে এই গুণ গুলোর অালোচনা এসেছে।দ্বিতীয় প্রকার গুণ আসলে মানুষের হাতে নেই বরং সেটা তাকদীরের বিষয়।মহিলাদের জন্য এই গুণ গুলো থাকবে। এতে কষ্ট লাগার কি অাছে কি?

সম্ভবত ঘনঘন সন্তান প্রসবের কথাটা আপনার কাছে লেগেছে।মূলত আল্লাহ তা'আলা এই পৃথিবীকে আবাদ করার জন্য এবং উনার ইবাদতের জন্য মানুষ কে প্রেরণে করেছেন।

সুতরাং সন্তান প্রসব করার দ্বারা উম্মতে মুহাম্মদি বাড়বে।পৃথিবীকে আবাদকারী বাড়বে।এটাই তো নিয়ম এবং বাস্তবতা।

যার যত সন্তান হবে এবং সন্তানগুলোকে মানুষ হিসেবে গড়ে তুলবে সেই তো ভবিষ্যতে সুখে শান্তিতে বসবাস করবে।

স্বামীর সাথে প্রেম বিনিময় করা তো সাংসারিক জীবনের সূখ শান্তির জন্য অপরিহার্য একটা বিষয়।যে সংসারে স্বামী-স্ত্রী র মধ্যকার প্রেমপূর্ণ সম্পর্ক থাকবে না,সেটা কি কখনো বাস্তবিক অর্থে কোনো  সংসার হতে পারে।

আল্লাহ তা'আলা আমাদের নারীদেরকে উক্ত গুণ সমূহে গুণানিত্ব হওয়ার তাওফিক দান করুক আমীন।

পরামর্শ প্রদাণে

মুফতী ইমদাদুল হক

ইফতা বিভাগ, IOM.

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের  অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।

...