0 votes
140 views
in miscellaneous Fiqh by (4 points)
reopened by
ধরেন কোন ব্যক্তি জানের ভয়ে কারো বাসায় আশ্রয় নিল। এখন প্রতিপক্ষ তাকে খুঁজতে আসলে বাসার মালিক কী জবাব দিবে? একদিকে মিথ্যা বলা নিষেধ, আর সত্য বললে আরেক ব্যক্তির জান চলে যাবে। এক্ষেত্রে হুকুম কী? কিসের ভিত্তিতে এই ধরনের পরিস্থিতিতে সিদ্ধান্তে আসতে হবে? কী করলে কী হবে এখানে?

1 Answer

0 votes
by (1.3k points)
edited by

যেসব ক্ষেত্রে মিথ্যা বলা জায়েয তা হলঃ।

যুদ্ধ ক্ষেত্রে যুদ্ধের কৌশল হিসাবে।

#  দুজন বিবদমান লোকের মধ্যে ঝগড়াশত্রুতা ও বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য।

স্বামী তার স্ত্রীকে সন্তুষ্ট করার জন্য।

নিজের প্রকৃত হক উদ্ধারের জন্য কিংবা নিজের অথবা অপরের বড় ধরনের ক্ষতি ঠেকানোর জন্যও মিথ্যা বলার অনুমতি রয়েছে। এ নীতির অধীনেই চোর ডাকাতের কাছে নিজের টাকা-পয়সা ও মালের কথা অস্বীকার করা যায়অন্য ভাইয়ের গুপ্ত ভেদ কেউ জানতে চাইলে তা অস্বীকার করা যায়।

• আর সত্য বললে মারাত্নক ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিলে এবং মিথ্যা বলা দ্বারা সে ক্ষতি থেকে রক্ষা পাওয়ার সম্ভাবনা বোধ হলে সেরূপ ক্ষেত্রে মিথ্যা বলা ওয়াজিব হয়ে যায়। তাই কোন ক্ষেত্রে সত্য বলা দ্বারা অন্যায়ভাবে নিজের বা অন্যের জীবন হানির সম্ভাবনা দেখা দিলে সে ক্ষেত্রে মিথ্যা বলে জীবন রক্ষা করা সম্ভাব হলে তা করা ওয়াজিব। তাই প্রশোক্ত সূরতে মিথ্যা বলা জায়েয। ইনশাল্লাহ কোন গুনাহ হবে না। (ওয়াল্লাহু আলাম)   

উত্তর প্রদান:

আরিফুল ইসলাম

ফিক্বহ ডি. আই ও এম

ইসলামিক ফতোয়া ওয়েবসাইটটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত। যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।
...