0 votes
5 views
ago in Halal & Haram by

হুজুর একটি বইয়ে পড়েছি, চিংড়ি মাছ খাওয়া নাকি নাজায়েয?

1 Answer

0 votes
ago by (8.8k points)

বিসমিহি তা'আলা

জবাবঃ- 

চিংড়ি সম্পর্কে চার মাযহাবের উলামায়ে কেরামদের মধ্য মতবিরোধ রয়েছে।শা'ফী, মালিকী,ও হাম্বলী মাযহাবের উলাময়ে কেরামগণ চিংড়িকে জায়েয বলে মনে করেন।

চিংড়ি নিয়ে হানাফী মাযহাবের উলামায়ে কেরামদের মধ্যেও মতবিরোধ রয়েছে।

কেউ কেউ মাকরুহে তাহরীমি মনে বলেন।

আবার কেউ মাকরুহে তানযিহি বলেন।অর্থাৎ তাহরীমি মনে না করলেও না খাওয়াকে উত্তম ও সচেতন পদক্ষেপ হিসেবে গণ্য করেন।

তাকমিলাতু ফাতহুল মুলহিম-৩/৫১৩-৫১৪

আহসানুল ফাতাওয়া-৭/৩৯১

কিতাবুন নাওয়াযিল-১৪/৪১৩

কেফায়াতুল মুফতী-৯/১২৪

ইমদাদুল ফাতাওয়া-৪/১০৩

সু-প্রিয় পাঠকবর্গ!

উপরোক্ত কিতাবি অধ্যয়ন করলে বুঝা যায় যে,চিংড়িতে মাছের সংজ্ঞা আরোপিত হচ্ছে কি---না?

এ সম্পর্কে প্রচন্ড মতবিরোধ রয়েছে।

যারা চিংড়িকে মাছ বলতে চান না তাদের বক্তব্য বর্তমান প্রাণীবিজ্ঞানীদের সংজ্ঞার অনুকূলেই।কেননা বর্তমান প্রাণীবিজ্ঞানীরা চিংড়িকে মাছ বলতে একেবারেই নারাজ।

অন্যদিকে পূর্ববর্তী  কিছুসংখ্যক বিজ্ঞানীরা জোরগলায় চিংড়িকে মাছ বলে চিৎকার দেন।

তাদের ঐ মতবিরোধের কারণেই ফুকাহায়ে কেরামদের মধ্যে মূলত মতবিরোধ হয়েছে।

যেহেতু মতবিরোধ হুকুমের মধ্যে শীতিলতা নিয়ে আসে, বিধায় বর্তমানে চিংড়ি খাওয়াকে মাকরুহে তাহরীমি  বলা যাবে না।বরং মাকরুহে তানযিহি বলতে হবে।তথা শরয়ী অপছন্দনীয়তার সাথে খাওয়া যাবে।

তবে সর্বোপরি এত্থেকে বেছে থাকাই হল তাকওয়া ও সচেতনতার স্পষ্ট দাবী।

অাল্লাহ-ই ভালো জানেন।

উত্তর লিখনে

মুফতী ইমদাদুল হক

ইফতা বিভাগ, IOM.

পরিচালক

ইসলামিক রিচার্স কাউন্সিল বাংলাদেশ

ইসলামিক ফতোয়া ওয়েবসাইটটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত। যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।
...