0 votes
30 views
in বিবিধ মাস’আলা (Miscellaneous Fiqh) by (23 points)
আসসালামু আলাইকুম।

শায়েখ, তামিম আল আদনানি কি হকপন্থি? তার আকিদা মানহাজ কি সালাফদের মানহাজ?যদি না হয় তাহলে তার ভুল গুলো ধরিয়ে দিবেন দয়া করে।

1 Answer

0 votes
by (21,360 points)
edited by
জবাব
وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته 
بسم الله الرحمن الرحيم 

"শায়েখ তামিম আল আদনানি সাহেব হাফিঃ"
তার পুরোপুরি আকিদা বিশ্বাস কি? তার মূল মাকসাদ কি? তিনি কারো এজেন্ট কি না? নাকি আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের বিধান কায়েমই তার একমাত্র মাকসাদ?

এর কোনটিই আমাদের কাছে পরিস্কার নয়। পৃথিবীর সব ক’টি শক্তিশালী সংবাদ মাধ্যম ইহুদী বা খৃষ্টান নিয়ন্ত্রিত।  সকল শক্তিশালী মিডিয়া তাদের দখলে। ফলে তাদের সংবাদের উপর নির্ভর করে বা শায়েখ তামিম আল আদনানি সাহেব হাফিঃ এর পক্ষ্য থেকে প্রচারিত,তার পক্ষ্য থেকে পাঠানো অডিও,ভিডিও  বক্তব্য ইত্যাদির উপর  ভিত্তি করে আমরা তাকে যাচাই করতে পারছি না।
,
এ আমেরিকান মিডিয়াই এক সময় ওসামা বিন লাদেনকে বিশ্বনেতা বলে আখ্যায়িত করেছিল। আবার তারাই বানিয়েছে ভিলেন। তাই শুধুই তাদের মিডিয়ার মাধ্যমে সংবাদের উপর নির্ভর করে আমরা কোন সিদ্ধান্তই দিতে পারছি না। 
,
কিছু উলামায়ে কেরামগন 
তাকে হক পন্থি বলে মনে করেন,কেহ আবার তাকে জঙ্গি বলেন।
অনেকে আবার তার ব্যাপারে তেমন কথা বলেননা। 
তারা মন্তব্য করা থেকে দূরে থাকেন।     

তিনি বর্তমানে জিহাদ নিয়ে নেট দুনিয়ায় জোড়ালো বক্তব্য দিচ্ছেন,জিহাদের প্রতি জনগনকে আহবান করছেন।
তালেবান, আল কায়েদার সমর্থক বলেও মনে হয়।
তাদের যুদ্ধ যে শরয়ী জিহাদ,এই ব্যাপারে অনেকেই মতবিরোধ করেন।  
তবে উলামায় কেরাম সকলেই এটা মানেন  যে শরয়ী জিহাদ কোথাও না কোথাও হচ্ছেই।

কারন হাদীস শরীফে এসেছেঃ  
জাবির ইবনু ‘আবদুল্লাহ (রাঃ) থেকে বর্ণিত, আমি নবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-কে বলতে শুনেছি,

 "لا تزال طائفة من أمتي يقاتلون على الحق ظاهرين إلى يوم القيامة - قال - فينزل عيسى ابن مريم صلى الله عليه وسلم فيقول أميرهم تعال صل لنا . فيقول لا . إن بعضكم على بعض أمراء . تكرمة الله هذه الأمة " 

 কিয়ামাত পর্যন্ত আমার উম্মাতের একদল সত্য দ্বীনের উপর প্রতিষ্ঠিত থেকে বাতিলের বিরুদ্ধে ক্বিতাল (قتال) করতে থাকবে এবং অবশেষে ‘ঈসা (‘আঃ) অবতরণ করবেন। মুসলিমদের আমীর বলবেন, আসুন সালাতে আমাদের ইমামাতি করুন। তিনি বলবেন না, আপনাদেরই একজন অন্যদের জন্য ইমাম নিযুক্ত হবে। এ হলো আল্লাহ তা’আলা প্রদত্ত এ উম্মাতের সম্মান। (সহিহ মুসলিম ২৮৬, মান: সহিহ হাদিস)
,
আনাস ইবনু মালিক (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ

 " ثلاثة من أصل الإيمان : الكف عمن قال لا إله إلا الله ولا تكفره بذنب ولا تخرجه من الإسلام بعمل، والجهاد ماض منذ بعثني الله إلى أن يقاتل آخر أمتي الدجال لا يبطله جور جائر ولا عدل عادل، والإيمان بالأقدار " . 

 তিনটি বিষয় ঈমানের মূলের অন্তর্ভুক্ত। (এক) যে ব্যক্তি ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু’ পড়বে তার ক্ষতি করা হতে বিরত থাকা, কোন গুনাহের কারণে তাকে কুফরির দিকে ঠেলে না দেয়া এবং (শরী’আতের বিরোধী) কোন কাজের কারণে তাকে ইসলাম থেকে বহিস্কার না করা। (দুই) আমাকে (রাসূল করে) প্রেরনের সময় থেকে জিহাদ চালু রয়েছে এবং তা অব্যাহত থাকবে। অবশেষে উম্মাতের জিহাদকারী সর্বশেষ দল দাজ্জালের বিরুদ্ধে (قتال-ক্বিতাল) যুদ্ধে লিপ্ত হবে। কোন অত্যাচারী শাসকের অত্যাচার অথবা কোন ন্যায়পরায়ণ শাসকের ইনসাফ এটাকে রহিত করতে পারবে না। (তিন) তাকদীরের প্রতি বিশ্বাস রাখা। (সুনানে আবু দাউদ ২৫৩২,
,

তাই শায়েখ  তামিম আল আদনানি সাহেব হাফিঃ এর  ব্যাপারে যেমন বাতিল হবার সিদ্ধান্ত জানাতে পারছি না। তেমনি ইসলামের সঠিক খিলাফতের দাবিদার বলেও স্বীকৃতি দিতে পারছি না। 
,
আমাদের কাছে তাদের আকিদা ও কর্মপদ্ধতি সম্পর্কে পরিপূর্ণভাবে প্রকাশিত হওয়া ছাড়া আমাদের পক্ষ থেকে শরয়ী কোন সিদ্ধান্ত জানাতে আমরা অপারগ। তাই আমাদের নীতি হল, কাউকে এ সংগঠণে অংশগ্রহণের জন্য উদ্বুদ্ধ যেমন করছি না। তেমনি যারা যাচ্ছে তাদের ব্যাপারে শক্ত শব্দ ব্যবহার করাও সমীচিন মনে করি না।

يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا إِن جَاءَكُمْ فَاسِقٌ بِنَبَإٍ فَتَبَيَّنُوا أَن تُصِيبُوا قَوْمًا بِجَهَالَةٍ فَتُصْبِحُوا عَلَىٰ مَا فَعَلْتُمْ نَادِمِينَ [٤٩:٦] 

মুমিনগণ! যদি কোন পাপাচারী ব্যক্তি তোমাদের কাছে কোন সংবাদ আনয়ন করে, তবে তোমরা পরীক্ষা করে দেখবে, যাতে অজ্ঞতাবশতঃ তোমরা কোন সম্প্রদায়ের ক্ষতিসাধনে প্রবৃত্ত না হও এবং পরে নিজেদের কৃতকর্মের জন্যে অনুতপ্ত না হও। {সূরা হুজুরাত-৬}


(আল্লাহ-ই ভালো জানেন)

------------------------
মুফতী ওলি উল্লাহ
ইফতা বিভাগ
Islamic Online Madrasah(IOM)

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন।

Related questions

...