0 votes
12 views
in Halal & Haram by
আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ   ,
শায়খ,

জানতে চাচ্ছি যে

১. কম্বাইন্ড কলেজে পড়া হারাম হলে মেয়েদের জন্য কি এটাই ভালো হবে না তা ছেড়ে দিয়ে দ্বীনি পড়াশুনায় মনোনিবেশ করা? (ছাত্রী আর্টসের, মেয়েদের ডাক্তার হওয়ার কোনো সুযোগ নেই)

২. অনেকে মহিলা কলেজে পড়তে চায়, মনে করে এটা জায়েজ, কিন্তু এখানেও তো পর্দার আড়াল ছাড়াই ইয়াং পুরুষ টিচাররা ক্লাস নেন। তাদের সাথে কথা বললে কণ্ঠের পর্দা, চলাফেরার পর্দা নষ্ট হয়। এটাকে জায়েজ ধরা হয় কিনা জানতে চাচ্ছিলাম!

৩. যতদিন কেউ (পুরুষ/নারী) কো-এডুতে পড়বে ততদিন কি তার উপর কবিরা গুনাহ বর্তাবে না? ছেড়ে দেওয়া মাত্র কি সে একটি হারাম থেকে দূরে চলে আসার কারণে সাওয়াবের ভাগীদার হবে না?

1 Answer

0 votes
by (8.8k points)

বিসমিহি তা'আলা

(১)

মুসলান প্রত্যেক নারী-পুরুষের উপর দ্বীনী ইলম সহ সময়োপযোগী  জ্ঞানাহরণ ফরয।অবশ্য দ্বীনী ইলম- যা ছাড়া দৈনন্দিন জিবনে ইসলাম পালন প্রায় অসম্ভব- সেই পরিমাণ দ্বীনী জ্ঞান অর্জন ফরযে আইন।এবং সময়োপযোগী জ্ঞানাহরণ ফরযে কেফায়া।

সুতরাং প্রত্যেক মুসলমানের উপর দ্বীনী পরিবেশে জ্ঞানার্জন করা ফরয।অবশ্য সময়ের বাস্তবাতায় এক্ষেত্রে কিছু ব্যতিক্রম রয়েছে।
বিস্তারিত জানতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন

(২)পর্দা করা ফরয।তবে সময়ের বাস্তবাতায় হুকুমে কিছুটা শীতিলতা চলে আসবে।বিস্তারিত জানতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন।
 (৩)শর্ত বিদ্যমান থাকলে আশা রাখি আল্লাহ ক্ষমা করবেন।সবিস্তারে দেখুন-----434

ইসলামিক ফতোয়া ওয়েবসাইটটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত। যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।
...