+1 vote
22 views
in Halal & Haram by
edited by
বর্তমান যুগ তথ্যপ্রযুক্তি ও অনলাইনের যুগ। সবকিছু অনলাইনে করা যায়। তাই মুফতি সাহেবের কাছে আমার প্রশ্ন  হলো, অনলাইনে  ফরেক্স ট্রেডিং (মুদ্রা ক্রয় বিক্রয়) এর ব্যবসা করা হালাল না হারাম?

 বিস্তারিতভাবে উত্তর প্রদানের জন্য মুফতি সাহেবের নেক মর্জি কামনা করছি।

1 Answer

0 votes
ago by (3.3k points)
বিসমিহি তা'আলা

ফরেক্সের শরয়ী হুকুমঃ

ফরেক্স সম্পর্কে যা আমরা জানতে পেরেছি, তা এই যে,ফরেক্স হল আন্তর্জাতিক মুদ্রার লেনদেন।

ফরেক্স জায়িয কি না?

সেটা মুদ্রা লেনদেন জায়েয, না নাজায়েয,সেই বিধি-বিধানের উপর নির্ভরশীল।

সাধারণত মুদ্রার লেনদেন দুইভাবে হতে পারে।যথা-
(ক)ভিন্ন দেশের কারেন্সির লেনদেন।

(খ)একই দেশের কারেন্সির লেনদেন।

প্রথম প্রকারের লেনদেনকেই ফরেক্স বলা হয়।

তথা ভিন্ন দুই দেশের মুদ্রার লেনদেনকেই ফরেক্স বলা হয়।

(ক)

ভিন্ন দেশের কারেন্সির লেনদেন

এক দেশের কারেন্সি আরেক দেশের কারেন্সির বিনিময়ে কমবেশি করে বিক্রি করা জায়েজ আছে। তবে এক্ষেত্রে মজলিসেই কমপক্ষে একপক্ষ টাকাটি হস্তগত করে নিতে হবে। যদি একজনও তাদের বিনিময়কৃত কারেন্সি হস্তগত না করে তাহলে ক্রয় বিক্রয়টি জায়েজ হবে না।

জাদীদ ফেকহী মাসাঈল;৪/২৮

জাদীদ মু'আমালাত কে শরয়ী আহকাম;১-১৩৯

(খ)

একই দেশের কারেন্সির পরস্পর লেনদেনের সময় সমতা রক্ষা করা আবশ্যক। কমবেশি করে বিক্রি করলে উক্ত ক্রয় বিক্রয় জায়েজ হবে না।

যেমন বর্ণিত রয়েছে,

ﻓﻰ ﺍﻟﻬﺪﺍﻳﺔ - ﻭﻳﺠﻮﺯ ﺑﻴﻊ ﺍﻟﻔﻠﺲ ﺑﺎﻟﻔﻠﺴﻴﻦ ﺑﺄﻋﻴﺎﻧﻬﻤﺎ ” ﻋﻨﺪ ﺃﺑﻲ ﺣﻨﻴﻔﺔ ﻭﺃﺑﻲ ﻳﻮﺳﻒ، ﻭﻗﺎﻝ ﻣﺤﻤﺪ : ﻻ ﻳﺠﻮﺯ ﻷﻥ ﺍﻟﺜﻤﻨﻴﺔ ﺗﺜﺒﺖ ﺑﺎﺻﻄﻼﺡ ﺍﻟﻜﻞ ﻓﻼ ﺗﺒﻄﻞ ﺑﺎﺻﻄﻼﺣﻬﻤﺎ، ﻭﺇﺫﺍ ﺑﻘﻴﺖ ﺃﺛﻤﺎﻧﺎ ﻻ ﺗﺘﻌﻴﻦ ﻓﺼﺎﺭ ﻛﻤﺎ ﺇﺫﺍ ﻛﺎﻧﺎ ﺑﻐﻴﺮ ﺃﻋﻴﺎﻧﻬﻤﺎ ( ﻫﺪﺍﻳﺔ، ﻛﺘﺎﺏ ﺍﻟﺒﻴﻮﻉ، ﺑﺎﺏ ﺍﻟﺮﺑﻰ - 3/85 ، ﻃﺒﻊ ﺭﺣﻤﺎﻧﻴﺔ)

ﻓﻰ ﺍﻟﻤﺴﺘﺪﺭﻙ ﻟﻠﺤﺎﻛﻢ - ﻋَﻦِ ﺍﺑْﻦِ ﻋُﻤَﺮَ ﺭَﺿِﻲَ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻋَﻨْﻬُﻤَﺎ، ﺃَﻥَّ ﺍﻟﻨَّﺒِﻲَّ ﺻَﻠَّﻰ ﺍﻟﻠﻪُ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻭَﺳَﻠَّﻢَ « ﻧَﻬَﻰ ﻋَﻦْ ﺑَﻴْﻊِ ﺍﻟْﻜَﺎﻟِﺊِ ﺑِﺎﻟْﻜَﺎﻟِﺊِ » ( ﻣﺴﺘﺪﺭﻙ ﻋﻠﻰ ﺍﻟﺼﺤﻴﺤﻴﻦ - 2/65 66- ، ﺭﻗﻢ 2342- ، ﺷﺮﺡ ﻣﻌﺎﻧﻰ ﺍﻵﺛﺎﺭ، ﺭﻗﻢ 5554- ، ﺳﻨﻦ ﺍﻟﺪﺭﻗﻄﻨﻰ، ﺭﻗﻢ 3060-

মোটকথাঃ

ফরেক্স সম্পর্কে আমরা যা জানি অর্থাৎ ভিন্ন দুই দেশের মুদ্রাবিনিময়।

সেটাতে অন্যকোনো হারাম জিনিষ সংযুক্ত না থাকলে,এতে নাজায়েয এর কিছু নেই।

আল্লাহ-ই ভালো জানেন।
ইসলামিক ফতোয়া ওয়েবসাইটটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত। যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।
...