0 votes
19 views
in যাকাত ও সদকাহ (Zakat and Charity) by (21 points)
উস্তাদ, অন্যদের উৎসাহী করতে লোক দেখিয়ে দান করার ব্যাপারে ইসলাম কি বলে?যাকে দান করা  হলো আর যে দান করলো  তার ছবি তুলে ফেসবুকে দিয়ে প্রচার করার ব্যাপারে কি মত?

1 Answer

0 votes
by (30.9k points)

বিসমিহি তা'আলা

জবাবঃ-
আল্লাহ তা'আলা বলেন,
ﺇِﻥ ﺗُﺒْﺪُﻭﺍْ ﺍﻟﺼَّﺪَﻗَﺎﺕِ ﻓَﻨِﻌِﻤَّﺎ ﻫِﻲَ ﻭَﺇِﻥ ﺗُﺨْﻔُﻮﻫَﺎ ﻭَﺗُﺆْﺗُﻮﻫَﺎ ﺍﻟْﻔُﻘَﺮَﺍﺀ ﻓَﻬُﻮَ ﺧَﻴْﺮٌ ﻟُّﻜُﻢْ ﻭَﻳُﻜَﻔِّﺮُ ﻋَﻨﻜُﻢ ﻣِّﻦ ﺳَﻴِّﺌَﺎﺗِﻜُﻢْ ﻭَﺍﻟﻠّﻪُ ﺑِﻤَﺎ ﺗَﻌْﻤَﻠُﻮﻥَ ﺧَﺒِﻴﺮٌ
যদি তোমরা প্রকাশ্যে দান-খয়রাত কর, তবে তা কতইনা উত্তম। আর যদি খয়রাত গোপনে কর এবং অভাবগ্রস্তদের দিয়ে দাও, তবে তা তোমাদের জন্যে আরও উত্তম। আল্লাহ তা’আলা তোমাদের কিছু গোনাহ দূর করে দিবেন। আল্লাহ তোমাদের কাজ কর্মের খুব খবর রাখেন।(সূরা বাক্বারা-২৭১)

ইবনে কাসির রাহ উক্ত আয়াতের তাফসীরে লিখেন,
" ﻓﻴﻪ ﺩﻻﻟﺔ ﻋﻠﻰ ﺃﻥ ﺇﺳﺮﺍﺭ ﺍﻟﺼﺪﻗﺔ ﺃﻓﻀﻞ ﻣﻦ ﺇﻇﻬﺎﺭﻫﺎ ؛ ﻷﻧﻪ ﺃﺑﻌﺪ ﻋﻦ ﺍﻟﺮﻳﺎﺀ ، ﺇﻻ ﺃﻥ ﻳﺘﺮﺗﺐ ﻋﻠﻰ ﺍﻹﻇﻬﺎﺭ ﻣﺼﻠﺤﺔ ﺭﺍﺟﺤﺔ ، ﻣﻦ ﺍﻗﺘﺪﺍﺀ ﺍﻟﻨﺎﺱ ﺑﻪ ، ﻓﻴﻜﻮﻥ ﺃﻓﻀﻞ ﻣﻦ ﻫﺬﻩ ﺍﻟﺤﻴﺜﻴﺔ .ﻭﺍﻷﺻﻞ ﺃﻥ ﺍﻹﺳﺮﺍﺭ ﺃﻓﻀﻞ ﻟﻬﺬﻩ ﺍﻵﻳﺔ ، ﻭﻟﻤﺎ ﺛﺒﺖ ﻓﻲ ﺍﻟﺼﺤﻴﺤﻴﻦ ﻋﻦ ﺃﺑﻲ ﻫﺮﻳﺮﺓ ﻗﺎﻝ : ﻗﺎﻝﺭﺳﻮﻝ ﺍﻟﻠﻪ ﺻﻠﻰ ﺍﻟﻠﻪ ﻋﻠﻴﻪ ﻭﺳﻠﻢ : ( ﺳﺒﻌﺔ ﻳﻈﻠﻬﻢ ﺍﻟﻠﻪ ﻓﻲ ﻇﻠﻪ ﻳﻮﻡ ﻻ ﻇﻞ ﺇﻻ ﻇﻠﻪ ... ﺍﻟﺤﺪﻳﺚ ، ﻭﻓﻴﻪ : ( ﻭﺭﺟﻞ ﺗﺼﺪﻕ ﺑﺼﺪﻗﺔ ﻓﺄﺧﻔﺎﻫﺎ ﺣﺘﻰ ﻻ ﺗﻌﻠﻢ ﺷﻤﺎﻟﻪ ﻣﺎ ﺗﻨﻔﻖ ﻳﻤﻴﻨﻪ ) "
এই আয়াত এটাই প্রমাণ করে যে,প্রকাশ্যে সদকাহ করার চেয়ে গোপনে সদকাহ করা অনেক উত্তম।কেননা গোপনে সদকাহ করা রিয়া(লোকদেখানো)এর কোনো সম্ভাবনা রাখে না।তবে যদি প্রকাশ্যে সদকাহ করার উল্লেখযোগ্য কোনো কারণ থাকে, যেমন অন্যকে উৎসাহিত করা।তাহলে এমন সময় প্রকাশ্যে সদকাহ করাই উত্তম।

হ্যা মূলত গোপনে সদকাহ করাটাই উত্তম ছিলো।কেননা আবু হুরায়রা রাযি থেকে বর্ণিত,হাশরের ময়দানে আল্লাহ পাক সাত ব্যক্তিকে আরশের ছায়ার নিচে স্থান দিবেন।এই সাত ব্যক্তির একব্যক্তি হল এমন, যার ডান হাত সদকাহ করেছে কিন্তু তার বাম হাত সে সদকাহর খবর জানেনা।(তাফসীরে ইবনে কাসির-১/৭০১-৭০২)

যদি প্রকাশ্যে সদকাহ করার উল্লেখযোগ্য কোনো কারণ না থাকে।তথা ইসলাম এবং মুসলমানের স্বার্থ তথায় জড়িত না থাকে, তাহলে এমন অবস্থায় গোপনে সদকাহ করাই অধিক উত্তম।
কেননা হাদীসে বর্ণিত রয়েছে,
 ( ﺻﺪﻗﺔ ﺍﻟﺴﺮ ﺗﻄﻔﺊ ﻏﻀﺐ ﺍﻟﺮﺏ )
গোপন সদকাহ রবের রাগকে ঠান্ডা করে দেয়।(তাবারনী-আওসাত-৯৪৩)

আল্লাহ-ই ভালো জানেন।

 

উত্তর  লিখনে

`````````````````

মুফতী  ইমদাদুল  হক

ইফতা বিভাগ, IOM.

পরিচালক

ইসলামিক রিচার্স কাউন্সিল বাংলাদেশ

ﻓَﺎﺳْﺄَﻟُﻮﺍْ ﺃَﻫْﻞَ ﺍﻟﺬِّﻛْﺮِ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢْ ﻻَ ﺗَﻌْﻠَﻤُﻮﻥَ অতএব জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস করো, যদি তোমরা না জানো। সূরা নাহল-৪৩

আই ফতোয়া  ওয়েবসাইট বাংলাদেশের অন্যতম একটি নির্ভরযোগ্য ফতোয়া বিষয়ক সাইট। যেটি IOM এর ইফতা বিভাগ দ্বারা পরিচালিত।  যেকোন প্রশ্ন করার আগে আপনার প্রশ্নটি সার্চ বক্সে লিখে সার্চ করে দেখুন উত্তর পাওয়া যায় কিনা। না পেলে প্রশ্ন করতে পারেন। আপনার দ্বীন সম্পর্কীয় প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য রয়েছে আমাদের  অভিজ্ঞ ওলামায়কেরাম ও মুফতি সাহেবগনের একটা টিম যারা ইনশাআল্লাহ প্রশ্ন করার ২৪-৪৮ ঘন্টার সময়ের মধ্যেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।

Related questions

...